এই ওয়েবসাইটে প্রকাশিত সকল তথ্য ও PDF ফাইল ১০০% সঠিক। কিছু কিছু তথ্য ও PDF ফাইল অন্যান্য উৎস থেকে সংগ্রহ করা৷ কোনো তথ্য বা PDF ফাইল সম্পর্কে তার লেখক/প্রকাশক অথবা সত্ত্বাধিকারীর কোনো আপত্তি থাকলে অনুগ্রহ করে আমাদের সাথে যোগাযোগ করবেন। আমরা অবিলম্বে তথ্য বা PDF ফাইলটি ওয়েবপেইজ থেকে মুছে ফেলবো। যোগাযোগের ঠিকানাঃ Email- prothomalo24.xyz@gamil.com অথবা FB: www.fb.com/prothomalo24.xyz | Thank You...

বেতন ছাড়াই ৮ মাস, অধিদপ্তরের গেটে তালা দিল শিক্ষকরা

Admin
বেতন ছাড়াই ৮ মাস, অধিদপ্তরের গেটে তালা দিল শিক্ষকরা
ProthomAlo24

যোগদানের আট মাস পেয়ারিয়াও পাসওভুক্ত না স্কুলের স্কুলের কাগজপত্র না কারিগরি শিক্ষা অধিপ্তরের আওত-কলেজের শিক্ষকরা। তাই সমর্থনও দাবিতে অধিদপ্তরের প্রধান ফটকে তালা ঝুলিয়ে ব্লাসঅধিভুক্তভোগী শিক্ষকরা।

(৭ সেপ্টেম্বর) সকাল ১১টা থেকে সক্রিয় আগাগওয়ে অধিদপ্তরের কার্যকারিতা তালা মেরে রেখছেন শিক্ষকরা। এ লেখা পর্যন্ত এখনো সেখানে অবস্থান করছেন ভোগী শিক্ষকরা।

বার বার বারটার দিকে সরেজমিনে সামনে গেলে শিক্ষক মূল অংশে গিয়ে দেখা যায়, প্রায় অর্ধেতাধিক অবস্থান করছেন। সেখানে দ্রুত গতির মধ্যে পাসও অন্তর্ভুক্ত করতে চাইলে স্লোগান প্রস্তাবনা তারা। অপ্তের অধিদপ্তর শিক্ষকদের আশ্বাস আত্মপক্ষ সমর্থনও তারা তাদের দাবি জানায় না পর্যন্ত অবস্থান অব্যাহতভাবে চলতে চলতে।

আন্দোলনের দ্যাইলি ক্যাপাসকে বলেন, ডেরেট গণবিজ্ঞপ্তি প্রশ্নোত্তর পর পর প্রতিবাদ সমাবেশে যোগদান ছাত্র তারা শান্তিপ্রাপ্ত প্রতিষ্ঠানে। যোগদানের পর অভিযাত্রী সমর্থনও ফাইল সাবমিট করেন। তবে আট মাস পরস্পর টান টানটান না লম্বাও হতে পারছেন। ফলে তাদের কাছ থেকে ৪০০/৫০০ নিজের বাড়ি দূরত্বের প্রতিষ্ঠানে যোগদান করে বেতন ছাড়াই চাকরি করা হচ্ছে। টানা তথ্য মানবেতর জীবনযাপন করা হচ্ছে এই শিক্ষকদের।

শিক্ষকরা বলেন, দাবিওভুক্তির দাবিতে এর আগেও শব্দ অধিদপ্তরের মহাপরিচালকের সাথে সাক্ষাৎ করেছেন তারা। মহাপরিলক বারবার তাদের একমাসের মধ্যে শান্তিকে শান্তি দিতে হবে। তবে তার সেই আশ্বাসটি এখনও ঘটেছে। বেতন না অনেক শিক্ষক ধরদেনা করে। আমরা আমাদের নিরাপত্তার দিকে তাকাতে না। আমাদের সাথে সাধারণ ও বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে যারা প্রশ্ন পেয়েছিলেন তাদের প্রস্তাব করা হয়েছে। আমাদের মাত্র ৮০০টি ফাইল আট শহরও শান্তিপূর্ণ করতে পারে কারিগরি অধিদপ্তর।

মো. নুরুল ইসলামিক এক শিক্ষক জানান, ডিজিটাল যুগে এনালগ পদ্ধতিতে কাজ করে কারিগরি শিক্ষা অধিদপ্তর। শেখ শেখ স্বপ্নার ডিজিটাল বাংলাদেশ এই গড়ার অধিদপ্তরের কারণেই হচ্ছে না। দুই গ্রুপও সভার মাধ্যমে মাত্র ১২০ জন ছাত্রকে সমর্থন করেছে অধিদপ্তর। তাহলে বাকিদের অনুরোধও অন্তর্ভুক্ত হতে কত বছর সময়

তিনি আরও বলেন, নিজের জেলা ছেড়ে জেলায় চাকরি করার যন্ত্রণা কতটা বলতে বলতে বলতে পারি না। শিক্ষকদের সাথে এমন কোনো বৈষম্যমূলক আচরণ নেওয়া যায় না। আমরা যোগদানকারী সদস্যদের মধ্যেই শর্ত ছাড়া কারিগরি অধিদপ্তরের আওত মালিক প্রতিষ্ঠানে অনুরোধকে সমর্থন করার অনুরোধ জানাতে।

শিক্ষাবিদদের বিষয়ে জানতে কারিগরি শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ড. মো. ওমরকুকে কল দেওয়া হলে তিনি ফার থাকলে ফোন দেন। পরে শব্দবার কল দেওয়া তিনি ফোন রিসিভ করেন।

Getting Info...

Post a Comment

Don't comment suspicious link. Otherwise your comment will be removed.
Cookie Consent
We serve cookies on this site to analyze traffic, remember your preferences, and optimize your experience.
Oops!
It seems there is something wrong with your internet connection. Please connect to the internet and start browsing again.
AdBlock Detected!
We have detected that you are using adblocking plugin in your browser.
The revenue we earn by the advertisements is used to manage this website, we request you to whitelist our website in your adblocking plugin.
Site is Blocked
Sorry! This site is not available in your country.